জীবনের মাঝবয়সে আতঙ্ক

সদগুরু জীবনের মাঝবয়সের সংকট নিয়ে একটি প্রশ্নের উত্তর দেন, এবং জীবন কীভাবে এক নিত্য পরিবর্তনের প্রক্রিয়া তা নিরীক্ষণ করেন।
Midlife-Crisis: Panik in der Lebensmitte
 

সদগুরু জীবনের মাঝবয়সের সংকট নিয়ে একটি প্রশ্নের উত্তর দেন, এবং জীবন কীভাবে এক নিত্য পরিবর্তনের প্রক্রিয়া তা নিরীক্ষণ করেন।

প্রশ্ন: সদগুরু, ইদানীং, আমি আমার জীবনে এক গভীর শূন্যতা অনুভব করছি। এটা কি আমার জীবনের মাঝবয়সের সংকট ?

সদগুরু: আপনার জীবন সংকট কখন ছিল না? শৈশবকাল একটা সংকট ছিল, কৈশর একটা সংকট ছিল, জীবিকার সন্ধান করা ছিল একটা সংকট, মাঝবয়স একটা সংকট, বার্ধক্য সংকট হবে, মৃত্যু সংকট হবে। অন্তত মাঝবয়সটা মাঝামাঝি হোক, তাই না! যৌবনের সমস্যা শেষ হয়েছে, বার্ধক্যজনিত সমস্যা এখনও আসেনি। আপনার জীবনের সেরা সময় হওয়া উচিত মাঝবয়স, কিন্তু আপনি এটাকেও একটা সংকট বলছেন। আপনার মাঝবয়সটা সমস্যা নয় - আপনি একটি সমস্যা।

৪০ কোনো সমস্যা নয়,না ৮০ কোনো সমস্যা, এবং না মৃত্যু কোনো সমস্যা। এটি জীবনের একটি স্বাভাবিক প্রক্রিয়া।

মাঝবয়সের সংকট বলে যেটাকে কাটিয়ে দেওয়া হচ্ছে সেটা খানিকটা শুধুই এই যে, যৌবনের কর্মচাঞ্চল্য চলে গিয়েছে। যখন আপনি তারুণ্যে ভরপুর ছিলেন, তখন আপনি সম্ভবত অমার্জিত ভাবে চলতেন। এখন শক্তি ফুরিয়ে যাচ্ছে, আপনি এখন আর ভোর চারটে অব্দি পার্টি করতে পারেন না, তাই আপনার মনে হয় এটা একটা সংকট।

আপনি যেটাকে সংকট বলছেন তা কেবল একটি পরিবর্তন। আপনি জানেন না কীভাবে পরিবর্তনটির মোকাবেলা করতে হবে, তাই আপনি এটিকে একটি সংকট বলছেন। আপনি যদি পরিবর্তন না চান, তবে হয় আপনাকে আপনার কবরে যেতে হবে, নয়ত আপনাকে আলোকপ্রাপ্ত হতে হবে। অন্যথায়, যতক্ষণ আপনি এই অস্তিত্বের ভৌত প্রক্রিয়ার অংশ, সেখানে এমন কিছু নেই যার পরিবর্তন হয় না। এই মুহুর্তে আপনি শ্বাস নিচ্ছেন ; পরের মুহুর্তে আপনি নিঃশ্বাস ছাড়ছেন - এটা হলো পরিবর্তন। আপনি যখন পরিবর্তনকে বাধা দেন, আপনি জীবনের স্বাভাবিক প্রক্রিয়াটিকে বাধা দেন এবং অনিবার্যভাবে, আপনি সমস্ত ধরণের দুর্ভোগকে আমন্ত্রণ জানান।

জীবন কে নকল অভিশাপে পরিনত করবেন না

জীবন কেবলমাত্র কতগুলো পরিস্থিতি। কিছু পরিস্থিতি আমরা সামলাতে জানি, কিছু পরিস্থিতি আমরা কীভাবে সামলাতে হয় জানি না। আপনি একঘেয়েমিতে মারা যাবেন যদি আপনি এমন একটি জীবনযাপন করেন যেখানে আপনি ইতিমধ্যে জানেন আপনার সামনে আসতে চলা প্রতিটি পরিস্থিতিকে কীভাবে সামলাবেন। যে পরবর্তী পরিস্থিতিটা আসছে তাকে যদি আপনি সামলাতে না জানেন, তবে আপনার উৎসাহিত হওয়া উচিত, কিন্তু আপনি মনে করেন এটি একটা সংকট। সুতরাং আপনার কাছে কেবলমাত্র দুটি বিকল্প বাকি থাকে - একঘেয়েমি অথবা সংকট!

আপনি যদি জীবনের সাথে নিযুক্ত থাকেন, তবে আপনি কখনই এটিকে সংকট হিসাবে অনুভব করবেন না।

জীবনকে নকল অভিশাপে পরিণত করবেন না যেখানে আপনি দুই দিক দিয়েই হারেন। যদি আপনি এমন এক পরিস্থিতির সম্মুখীন হন যা কীভাবে সামলাবেন আপনি জানেন না, সেটাই সময় যখন আপনার দেহ, মন, আবেগ এবং শক্তিকে সম্ভাব্য সর্বোত্তম ভাবে সঙ্ঘবদ্ধ করতে হবে, যাতে আপনি পরিস্থিতিটাকে কীভাবে সামলাবেন তা খুজে বের করতে পারেন। কিন্তু আপনি আপনার এই দিকগুলোকে সংগঠিত করতে চান না কারন সেগুলো কংক্রিট ব্লকের মতো হয়ে গেছে, যে গুলো পরিবর্তিত হতে চায় না। এই কংক্রিট ব্লক জীবনের প্রতিটি স্তরে একই আকার এবং প্রকার বজায় রাখার মধ্য দিয়ে যেতে চায় - এটি কার্যকর হবে না।

যখন আপনার বয়স চল্লিশ, আর আপনি তখনও নিজের জীবনকে নিয়ে সেইভাবে এগোতে চান যেন আপনি তখনও আঠার বছর বয়সী, এরকম হলে আপনার কাছে চল্লিশ একটা সংকট মনেতো হবেই। চল্লিশ কোনো সমস্যা নয়, না আশি কোনো সমস্যা, এবং না মৃত্যু কোনো সমস্যা। এটি জীবনের একটি স্বাভাবিক প্রক্রিয়া। যেহেতু আপনি জীবনের একটি পর্বের সাথে চিহ্নিত হয়ে পড়েছেন তাই পরবর্তী পর্বগুলো সংকটের মতো অনুভূত হয়। কোনো কিছুই সংকট নয়। আপনার জীবনে শুধুমাত্র পরিস্থিতি রয়েছে। জীবন এমনিতেও বদলাবে। এটি কি আপনি যেমন চান সেইভাবে পরিবর্তন করছে, নাকি এটি এলোমেলো ভাবে পরিবর্তিত হচ্ছে? এটিই একমাত্র প্রশ্ন।

এটি যেভাবেই বদলাক, তা স্থবিরতা থেকে ভালো, কারন মানব জীবন স্থবিরতা সহ্য করতে পারে না। "মিড লাইফ ক্রাইসিস" এর অর্থই: "আমার জীবন থেমে যাচ্ছে। সমস্ত কিছু একই - একই বাড়ি, একই থালা-বাসন মাজা, একই জীবনসঙ্গী - সবকিছুই এক মনে হয়। এই "সবকিছুই একই" এটা শুধুই একটা মনের সিদ্ধান্ত যা আপনি গড়েছেন। অন্যথায়, প্রতি দিন, প্রতি মুহূর্তে, ব্রহ্মান্ডে পরিবর্তন ঘটছে। আপনার দেহে পরিবর্তন হচ্ছে, আপনার মনে পরিবর্তন হচ্ছে, সব কিছুতেই পরিবর্তন ঘটছে - কিন্তু আপনার জীবনকে দেখার চোখ নেই। আপনি আপনার মনকে নিয়ে আচ্ছন্ন, আর আপনার মনটা গোল গোল চক্রে ঘুরছে। যেহেতু এটি বারবার বোকার মতো একই চক্রে ঘুরছে, তাই এটিকে স্থবির এবং সংকটাপন্ন মনে হয়।

এটি ভাল যে এটি একটি সমস্যা কারণ অন্যথায়, আপনি কখনই মিথ্যা থেকে বেরিয়ে আসার উপায় খুঁজবেন না।

আপনি যদি আপনার চারপাশের প্রতিটি পাতা পর্যবেক্ষণ করেন, আপনি যদি আপনার চারপাশে যা কিছু ঘটছে তা পর্যবেক্ষণ করেন, আপনি দেখতে পাবেন জীবন একটি পরিবর্তনের ধারাবাহিক প্রক্রিয়া; কিছুই কখনও স্থবির হয় না। ভিতরে এবং বাইরে দুয়েই, সবকিছু নিয়মিত পরিবর্তনের গতিশীল প্রক্রিয়ার মধ্যে থাকে। আপনি যদি জীবনের সাথে নিযুক্ত থাকেন তবে আপনি কখনই এটিকে সংকট হিসাবে অনুভব করবেন না। আপনি কেবলমাত্র আপনার চিন্তাভাবনা ও আবেগের সাথে লিপ্ত, তাই এটি একটি সমস্যা। এটি ভাল যে এটি একটি সমস্যা কারন অন্যথায়, আপনি কখনই মিথ্যা থেকে বেরিয়ে আসার উপায় খুঁজবেন না। আপনি ভালোর জন্য মিথ্যার সাথে সমঝোতা করে নিবেন।

সংকট মর্মান্তিকতার থেকে ভাল। আপনি কী করছেন সেটা না জেনে-বুঝেই যদি আপনি বাকি সারাটা জীবন নিজের চিন্তাভাবনা এবং আবেগের সাথে নিজেকে মজিয়ে রাখেন, তাহলে সেটা মর্মান্তিক হবে। সেটার থেকে সংকট ভালো - সংকট আপনাকে জাগিয়ে তুলতে পারে, তবে একটি মর্মান্তিকতা আপনাকে শেষ করে দেয়।

এই মুহূর্তে, আপনাকে বুঝতে হবে এই সংকটটি ১০০% আপনার মন এবং আবেগগুলির তৈরি - প্রকৃতির নয়, জীবনের নয়, সৃষ্টির নয় - কেবলমাত্র আপনার তৈরি। যদি আপনি সেটা উপলব্ধি না করেন তবে আপনি সংকটের পর সংকট তৈরি করে যাবেন। যদি আপনি উপলব্ধি করেন এটি আপনার তৈরি, তবে আপনাকে এটাকে থামাতে হবে না - এটা এমনিতেই উধাও হবে ।

Editor’s Note: Isha Kriya is a free online guided meditation created by Sadhguru, which helps bring clarity and wellbeing into one’s life. This simple yet potent 12-minute meditation makes one drop of spirituality available to every human being.

Try Isha Kriya Now

A version of this article was originally published in Isha Forest Flower July 2015. Download as PDF on a “name your price, no minimum” basis or subscribe to the print version.